চর্ম ও যৌন রোগ, স্বাস্থ্য বিষয়ক ব্লগ

সিফিলিস 

সিফিলিস 

সিফিলিস (syphilis) একটি সেয়াল ট্রান্সমিটেড ডিজিজ (যৌণবাহিত রোগ) যা ট্রিপোনেমা প্যালিডাম নামক ব্যকটেরিয়া দ্বারা সৃষ্ট। এটি অন্যতম একটি সচরাচর ঘটিত যৌণরোগ।

 

 

লক্ষণ

ক) ইতিহাস: অনিরাপদ যৌণক্রিয়ার ইতিহাস।

খ) প্রাথমিক পর্যায়।

১. প্রাথমিক ভাবে যৌনাঙ্গে বেদনাহীন ক্ষত দেখা দেয়। প্রথমে ক্ষুদ্র গোলাপী বর্ণের ফুস্কুরী সৃষ্টি হয় পরবর্তীতে আকারে বড় হয় এবং ক্ষতের সৃষ্টি হয়।

গ) মাধ্যমিক পর্যায় : প্রাথমিক পর্যায়ের পর দেখা যায়।

১. হাতের তালু ও পায়ের তালুতে চুলকানী বিহীন ম্যাকুলোপ্যাপুলার র্যাস (ফুস্কুরী) দেখা যায়। ২. জননাঙ্গ, মুখগহবর, ফ্যারিংস ও ল্যারিংস-এ ক্ষত দেখা যায়।

৩. মলদ্বারে কনডাইলোমাটা (আঁচিলের ন্যায়) দেখা যেতে পারে।

ঘ) চুড়ান্ত পর্যায়: মাধ্যমিক পর্যায়ের পর দেখা যায়।

১. ত্বকে ও মিউকাস মেমব্রেনে গ্র্যানুলোমা (গুটি) দেখা যেতে পারে।

ঙ) জটিলতা পর্যায় : চুড়ান্ত পর্যায়ের পর দেখা যায় ।

১. স্নায়ুতন্ত্রের সমস্যা দেখা দেয়।

২. হৃদযন্ত্রের সমস্যা দেখা দেয়।

চিকিৎসা 

এ রোগের লক্ষণ দেখা দিলে দ্রুত একজন চর্ম ও যৌন রোগ বিশেষজ্ঞ কিংবা স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ (মহিলাদের ক্ষেত্রে) ডাক্তারের নিকট প্রেরণ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *