চর্ম ও যৌন রোগ, স্বাস্থ্য বিষয়ক ব্লগ

চর্ম রোগে ব্যবহৃত ঔষধ

চর্ম রোগে ব্যবহৃত ঔষধ

চর্মরোগে ক্রিয়াশীল ঔষধ সমুহকে নিম্নরূপে শ্রেণিবদ্ধ করা যেতে পারে

ক) ডিজইনফ্যাকট্যান্ট ও এন্টিসেপটিক .ডিজইনফেকট্যান্ট : যে সকল রাসায়নিক পদার্থ বস্তুর উপরিতল থেকে জীবানু (সাধারণত স্পোর ব্যতিত) ধ্বংস করে তাদেরক ডিজইফেকট্যান্ট বলে। | এন্টিসেপটিক ; এগুলো হলো তুলনামূলক ভাবে মৃদু, অক্ষতকর, নির্বিষ রাসায়নিক পদার্থ যা জীবানুকে ধবংস করতে বা বৃদ্ধি প্রতিহত করতে জীবিত কোষ কলায় ব্যবহৃত হয়।

সচরাচর ব্যবহৃত ডিজইনফ্যাকট্যান্ট ও এন্টিসেপটিকের উদাহরন- ইথানল, ক্লোরোহেক্সিডিন, পভিডন আয়োডিন, ক্রিস্টাল ভায়োলেট, পটাশিয়াম পারম্যাঙ্গানেট।

খ) ইনফেকশনের জন্য ঔষধ। এ ঔষধগুলো বিভিন্ন ধরনের স্কিন ইনফেকশন চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়। এগুলো মূলত এন্টিমাইক্রোবিয়াল ড্রাগ। নিম্নভাবে শ্রেণিবদ্ধ করা যেতে পারে

সিস্টেমিক এন্টিমাইক্রোবিয়াল ড্রাগ; যেমন

  • এন্টিবায়োটিক; যেমন- সেফালোস্পোরিন।

এন্টিফাঙ্গাল; যেমন- ফুকোনাজল

  • এন্টিভাইরাল; যেমন- এসাইক্লোভির।
  • এন্টি স্ক্যাবিস: যেমন- আইভেমারসিন।

টপিক্যাল প্রস্তুতি

  • এন্টিব্যকটেরিয়াল

০ একক প্রস্তুতি: যেমন- ব্যাট্রিাসিন, ক্লিন্ডামাইসিন, ফিউসিডিক

এসিড, জেন্টামাইসিন, মিউপিরোসিন, নিওমাইসিন, পলিমিক্সিন-বি ইত্যাদি ।

ডাঃ আব্দুল্লাহ আল কাইয়ুম।

৭৫৫

মেডিসাইন্স পাবলিকেশন্স

চর্ম রোগ

০ সংমিশ্রন: যেমন

নিওমাইসিন + ব্যাট্রিাসিন

নিওমাইসিন + ব্যাট্রিাসিন + পলিমিক্সিন। এন্টি ফাঙ্গাল; যেমন- বেনজোয়িক এসিড + স্যালিসাইলিক এসিড, বিউটেনাফাইন, কোট্রাইমাজল, ইকোনাজল, ফেনটিকোনাজল, ইট্রাকোনাজল, কিটোকোনাজল, মিকোনাজল, নিস্টাটিন, অক্সিকোনাজল, টায়োকোনাজল ইত্যাদি। এন্টিভাইরাল: এসাইক্লোভির, ডোকোসানোন, ভ্যালাসাইক্লোভির এন্টিপ্যারাসাইটিক (এন্টিস্ক্যাবিস): যেমন- বেনজাইল বেনজোয়েট, ক্রোটামিন, আইভেমারসিন, মনোসালফিরাম, পারমেথ্রিন।

গ) কর্টিকোস্টেরয়েড কর্টিকোস্টেরয়েড বিভিন্ন চর্মরোগেও ব্যবহৃত হয়। নিম্নরূপে শ্রেণিবদ্ধ করা যেতে পারে

v সিস্টেমিক; যেমন- বিটামিথাসন / টপিক্যাল;

০ একক: যেমন- বিটামিথাসন, ক্লোবেটাসল, ডেসোনাইড,

ডিফ্লোরাসোন, ফুটিকাসোন, হ্যালসিনোনাইড, হ্যালোমেটাসোন,

হাইড্রোকর্টিসোন ইত্যাদি। ০ এন্টিমাইক্রোবিয়াল ও স্টেরয়েড সংযুক্তি

| এন্টিবায়োটিক ও স্টেরয়েড : বিটামিথাসন +

নিওমাইসিন এন্টিফাঙ্গাল ও স্টেরয়েড : বিটামিথাসন + কোট্রাইমাজল

ঘ) এন্টিহিস্টামিন।

ঙ) পোকামাকড় দংশনের জন্য প্রস্তুতি; যেমন- ডাইফেনহাইড্রেট + জিংক এসিটেট

চ) পোড়া ক্ষতের জন্য প্রস্তুতি; যেমন-সিলভার সালফাজাইন।

ডাঃ আব্দুল্লাহ আল কাইয়ুম

৭৫৬

মেডিসাইন্স পাবলিকেশন্স

চর্ম রোগ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *