Uncategorized @bn, রক্ত ও হৃদরোগ, স্বাস্থ্য বিষয়ক ব্লগ

ইসকেমিক হার্ট ডিজিজ  ও সকল পদ্ধতির ডাক্তারদের বক্তব্য।

ইসকেমিক হার্ট ডিজিজ

ইসকেমিক হার্ট ডিজিজ 

হার্টের রক্তনালীতে (আর্টারীতে) প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হলে হার্টের কিছুকিছু অংশ ( আর্টারী দ্বারা সরবরাহ লাভকারী) পর্যাপ্ত রক্ত সরবরাহ লাভ করে না। এই ব্যপারটিকে ইসকেমিক হার্ট ডিজিজ বলা হয়। এর প্রধান লক্ষণ বুক ব্যথা ও শ্বাসকষ্ট তবে অনেক ক্ষেত্রেই মারাত্বক পর্যায়ে না পৌছালে লক্ষণ প্রকাশ পায় না। তাই রোগীর উচ্চরক্তচাপ ও স্থূলতা থাকলে ইসকেমিক হার্ট ডিজিজ আছে কিনা তা পরীক্ষা করতে হবে। বয়স ৪০ এর বেশি হলেই বছরে অন্তত একবার হার্ট এর পরীক্ষা করাতে হবে।

 

ইসকেমিক হার্ট ডিজিজ এর রোগীকে নিয়মিত চিকিৎসকের পরামর্শ মতো ঔষধ সেবন করতে হবে। নইলে হার্ট এটাক বা হার্ট ফেউলুর হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *