চর্ম ও যৌন রোগ, স্বাস্থ্য বিষয়ক ব্লগ

এইডস 

এইডস 

এইডস (AIDS) এর পূর্ণ অভিব্যক্তি হলো একোয়ার্ড ইমিউন ডেফিসিয়েন্সি সিন্ড্রোম। এটি এইআইভি নামক ভাইরাস দ্বারা হয়। এর সঠিক কোন চিকিৎসা নেই ।

 

লক্ষণ

নিচের একটি বা একাধিক লক্ষন বিশিষ্ট ব্যক্তির রক্তে এইচআইভি ভাইরাসের এর এন্টিবডি আছে কিনা তা পরীক্ষা করতে হবে

১. ইতিহাস: যৌনরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনামূলক ক্রিয়ার ইতিহাস।

২. অজানা কারনে ওজন কমে যাওয়া (শতকরা দশভাগের বেশি) বা শীর্নতা, তৎসঙ্গে ডায়রিয়া বা জ্বর বা উভয়ই, ধারাবাহিক বা সবিরাম ভাবে এই লক্ষণ সমুহ কমপক্ষে এক মাস যাবৎ বিদ্যমান থাকলে।

৩. ক্রিপ্টোক্কাল মেনিনজাইটিস।

৪. ফুসফুসীয় বা অফুসফুসীয় যক্ষা

৫. কাপোসিস সারকোমা

৬. অজানা কারনে স্নায়তন্ত্রের বৈকল্য যার ফলে দৈনন্দিন কর্মকান্ড বাধা গ্রস্ত হয়।

৭. মুখগহবরের ও অন্ননালীর ক্যানডিডা নামক ছত্রাক সংক্রমন

৮. ক্লিনিক্যালভাবে নির্ণীত প্রাণ সংহারী বা পুন: পুন নিউমোনিয়ার আক্রমন।

৯. বিস্তারমূলক সারভাইকেল ক্যান্সার।

 

চিকিৎসা

প্রকৃতপক্ষে এইডস-এর কোন সুনির্দিষ্ট চিকিৎসা নেই এবং আরোগ্যও নেই। তবে কিছু কিছু এন্টিভাইরাল ঔষধ দ্বারা এইডস ভাইরাসের প্রকোপ রোধ মূলক চিকিৎসা করা হয়।

 

কারো মাঝে এইডস এর লক্ষণ দেখা দিলে তাকে নিকটস্থ সরকারী হাসপাতালে প্রেরণ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *